• শনিবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম


    সভাপতির দুর্ণীতির প্রতিবাদ করায় শিক্ষক প্রতিনিধিকে মারপিট ও শোকজ

    নাটোর প্রতিনিধি | ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৪:০২ অপরাহ্ণ

    সভাপতির দুর্ণীতির প্রতিবাদ করায় শিক্ষক প্রতিনিধিকে মারপিট ও শোকজ

    নাটোরের গুরুদাসপুর রোজী মোজাম্মেল মহিলা কলেজের দুই কোটি টাকার নিয়োগ বাণিজ্য,কলেজ রেজুলেশন মোতাবেক নিয়োগ প্রতি ১ লক্ষ করে টাকা কলেজের উন্নয় ফান্ডে জমা না দেওয়ার প্রতিবাদ করায় শিক্ষক প্রতিনিধিকে মারপিট শোকজ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার রোজী মোজাম্মেল মহিলা কলেজের প্রভাষক ও শিক্ষক প্রতিনিধি মাজেম আলীকে গভর্নিংবডির সভাপতির উপস্থিতিতে তাকে মারধর করা হয়। পরবর্তীতে তাকে বিভিন্ন ভাবে লাঞ্চিত করার অপচেষ্টা করা হয়।

     


    জানা যায়, ওই কলেজে অবৈধভাবে কোটি টাকার নিয়োগ বাণিজ্য করলেও কলেজ উন্নয়ন ফি বাবদ এক লাখ করে টাকা দেওয়ার কথা থাকলেও তা না দিয়ে অবৈধভাবে ৪ বছর যাবত গভর্নিংবডি সক্রিয় থেকে ইচ্ছামত দুর্নীতি করে যাচ্ছে। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পরিবর্তন যখন তখন শিক্ষকদের শোকজ করার প্রতিবাদ করতে যাওয়ায় গত ২০ নভেম্বর প্রভাষক মোঃ মাজেম আলী মলিনকে গভর্নিংবডির সদস্য তাকে মারপিট করে। এতে ওই শিক্ষক অসুস্থ্য হয়ে পরলে স্থানীয়রা তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে। অতঃপর সভাপতিসহ ওই সদস্যের নামে থানায় জিডি করেন তিনি। পরে ম্যানেজিং কমিটির চাপে কোর্টে গিয়ে ওই জিডি তুলতে বাধ্য হন। ওই শিক্ষক কে ইতিপূর্বেও প্রতিহিংসামুলক ভাবে সভাপতি মোঃ শাহনেওয়াজ আলী নিয়ম নিতি না মেনে নিজেই শোকজ করেন। যার প্রেক্ষাপ্রটে আরেকটি জিডি করেন।

    শিক্ষক মাজেম আলী জানান, গত ২০ নভেম্বর অবৈধ নিয়োগে রাজি না হওয়ায় সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মায়ারানীকে জোড়পূর্বক সরিয়ে দিয়ে তার স্থানে রুহুল করিম আব্বাসীকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিয়োগ দেওয়া হয়। কলেজের সভাপতি শাহনেওয়াজ আলী ও সাবেক অধ্যক্ষ কলেজের তহবিল থেকে ২৫ লাখ টাকা এবং এফডিআর এর ৬ লাখ টাকা আত্মসাত করেন। যার প্রেক্ষাপটে কলেজ শিক্ষকরা শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষাপটে তদন্ত হয় এবং প্রমানিত হয় এবং তাদের বিরুদ্ধে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষা মন্ত্রনালয় ব্যবস্থা নিতে বলেন। কিন্তু কর্তপক্ষ তা করেনি। পরে মামলার চাপে ওই এফডিআরের ৬ লাখ টাকা কলেজে ফেরত দিতে বাধ্য হয়।


     

    তিনি ৪ বছর সভাপতি থাকাকালিন সময়ে ২৫ জন শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ প্রদান করেন। এতে প্রায় ২ কোটি টাকারও বেশি নিয়োগ বাণিজ্য করলেও কলেজের উন্নয়ন তহবিলে কোন টাকা দেয়নি। বিধি বহির্ভূত ভাবে আবারো সময় পার হয়ে যাওয়ার পরেও নতুন করে সভাপতি হওয়ার চেষ্টা করছেন। এছাড়াও দীর্ঘ ২০ বছর পর বেতন হওয়া ডিগ্রি শিক্ষকদের কাছ থেকে ৫০ হাজার করে টাকা নিয়ে আত্মসাত করেন। এসব অন্যায় কাজের প্রতিবাদ ও কলেজের উন্নয়ন তহবিলে টাকার দাবি করতে গেলে শিক্ষক প্রতিনিধি ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধানকে কোন ছাত্রীর নাম উল্লেখ না করে জনৈক ছাত্রীর কথা বলে তাকে বিধি বহির্ভুতভাবে তাকে কোন তদন্ত ছাড়াই শোকজ করেন।


    সাবেক অধ্যক্ষ মায়ারানী চক্রবর্ত্তীকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ থেকে বাদ দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, গভর্নিংবডির অবৈধ নিয়োগে বাধা প্রদান করায় আমাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৪:০২ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২১

    seradesh.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১

    সম্পাদক : মোঃ আতোয়ার হোসেন | বার্তা সম্পাদক : আবু সাঈদ

    ঢাকা অফিসঃ বাড়ি #৫ (১ম তলা) রোড #০ কল্যাণপুর, ঢাকা-১২০৭, অফিস ঢাকা রোড সান্তাহার ৫৮৯১
    ফোন : 01767 938324 (মফস্বল) 01830 359796 (সম্পাদক) | E-mail : seradeshmoff@gmail.com, news@seradesh.com

    ©- 2021 seradesh.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।

    %d bloggers like this: